শাওমি এম আই ৬

বাজারে আসতে চলেছে শাওমির নতুন ফোন শাওমি এম আই ৬

শাওমি এম আই ৬
শাওমি এম আই ৬

বাজারে আসতে চলেছে শাওমির নতুন ফোন শাওমি এম আই ৬. 

সকল জল্পনা-কল্পনা শেষ করে অবশেষে শাওমি বাজারে নিয়ে আসতে চলেছে, শাওমির নতুন ফোন শাওমি এম আই ৬ !! তুলনামূলক ভাবে কমদাম এবং সেই অনুপাতে যথেষ্ট ভাল ফিচার থাকার কারণে, শাওমি দ্রুতই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে লাখো মানুষের কাছে। জনপ্রিয়তা এবং বাজারজনিত চাহিদা থাকার কারণে, এটি আবার্‌ও নতুন ফোন নিয়ে হাজির হয়েছে। আমরা আজ সেই সম্পর্কেই আলোচনা করব। তার আগে চলুন জেনে নেই, শাওমি ব্রান্ড সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু তথ্যঃ

শাওমি বা শাওমি ইনকর্পোরেট হচ্ছে একটি প্রাইভেট চীনা ইলেকট্রনিক্স কোম্পানি।বর্তমানে এটি বিশ্বের ৪র্থ বৃহত্তম স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। শাওমির সদর দপ্তর, চীনের বেইজিং এ অবস্থিত। শাওমি ২০১০ সালের ৬ এপ্রিল মোট আটজন সহযোগীর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠা লাভ করে এবং ২০১০ সালের ১৬ আগস্ট তারিখে, শাওমি আনুষ্ঠানিকভাবে এর প্রথম অ্যান্ড্রয়েড-ভিত্তিক ফার্মওয়্যার এম,আই,ইউ,আই (MIUI) চালু করে।  এবং এটি আনুষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশে বাজারজাত শুরু করে ২০১৬ সালের আগস্টে।

শাওমির ব্যবসায়ের সবথেকে অভিনব উপায় হল,এটি পন্যের দাম প্রায় তৈরী দামের কাছাকাছি রাখে। যদিও এ ক্ষেত্রে ফোনের গুণগত মান এবং কর্মক্ষমতা অন্যান্য প্রিমিয়াম স্মার্টফোনের তুলনায় কোনও অংশে কম নয়। বরং, দাম অনুপাতে এর মান যথেষ্ট ভাল। ২০১৫ সালে শাওমি ৭০.৮ মিলিয়ন ইউনিট বিক্রি করে এবং কোম্পানিটি স্মার্টফোনের বিশ্ব বাজারের শেয়ারের প্রায় ৫ শতাংশ অধিকার করে নেই। এছাড়া, এমআইটি টেকনোলজি রিভিউ অনুসারে শাওমি ২০১৫ সালের ৫০টি অন্যতম স্মার্ট কোম্পানির তালিকায় ২য় স্থানে রয়েছে।

তবে উল্লেখ্য, শাওমি ২০১৫ এর ৬ এপ্রিল এমআই ফ্যান ফেস্টিভ্যাল এর মাধ্যমে এর ৫ম জন্মদিন উপলক্ষে, অফার এবং ডিসকাউন্ট সুবিধাসহ একটি অনলাইন শপিং ডে পালন করে। শাওমি তার কাস্টমাদের জন্য সরাসরি পরিচালিত ওয়েবসাইট এমআই ডট কম এর মাধ্যমে ২১,১২,০১০ টি হ্যান্ডসেট বিক্রি করে, যা “২৪ ঘন্টার মধ্যে একক অনলাইন প্ল্যাটফর্মে সবচেয়ে বেশি মোবাইল ফোন বিক্রির” বিশ্ব রেকর্ড!! এবং এই রেকর্ড  গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে স্থান করে নেয়।

গত বছর মোবাইল ফোনের বাজারে শাওমি এমআই ৫ এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন সকলের দৃষ্টি কেড়েছিল। আর এবার এই চীনা কোম্পানিটি নিয়ে এসেছে আরো একটি ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস- শাওমি এমআই ৬ স্মার্টফোন।
দিন তিনেক আগে শাও-ওমি কোর্পরেশন এটির নতুন ডিভাইস রিলিজ করার ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক তথ্য দিয়েছে। চমৎকার কিছু ফিচার সমৃদ্ধ এই স্মার্টফোন টি এই মাসের শেষের দিকে বাজারে ছাড়া হবে। আসুন দেখে নেওয়া যাক এর বিশেষ বিশেষ ফিচার সমূহঃ

শাওমি এম আই ৬ এর বিশেষ ফিচার সমূহঃ 

স্পেসিফিকেশনঃ 

শাওমি এমআই ৬ ফোনটিতে স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ অক্টাকোর সিপিইউ রয়েছে যা ১০ ন্যানোমিটার আর্কিটেকচারের উপর ভিত্তি করে তৈরি। স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ সিরিজের প্রসেসর এই ফোনটি ছাড়া এই মুহূর্তে শুধুমাত্র স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৮ ফোনে আছে!এছাড়াও শাওমি’র এই ফোন টিতে রয়েছে অ্যাড্রিনো ৫৪০ জিপিইউ এবং ৬ জিবি র‍্যাম! জ্বী,ভাই! ৬ জি,বি র‍্যাম! যা সত্যিই চমকপ্রদ! আর এই ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড নোগাট ৭.১.১ ভার্সনে চলবে।
শাওমি এমআই ৬ ফোনের মূলত দুটি স্টোরেজ ভ্যারিয়েশন থাকবে। একটি হলো, ৬৪ জি,বি অভ্যন্তরিন স্টোরেজ সম্পন্ন এবং অপরটি ১২৮ জি,বি স্টোরেজ সমৃদ্ধ। ফোনটির ব্যাটারি রাখা হয়েছে ৩৩৫০ এমএএইচ! নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের কথ্য মতে, একবার ফুল চার্জে ফোনটি একদিন ব্যবহার করা যাবে। একনজরে স্পেসিফিকেশন গুলো দেখে নিন,

  • অপারেটিং সিস্টেম: অ্যান্ড্রয়েড নোগাট ৭.১.১
  • চিপসেট: Qualcomm MSM8998 স্ন্যাপড্রাগন 835.
  • সিপিইউ: Octa-core (4×2.45 GHz Kryo & 4×1.9 GHz Kryo).
  • জিপিইউ: Adreno 540.
  • মেমরিঃ ৬৪জিবি এবং ১২৮ জিবি। (এক্সটার্নাল মেমরি নেই)
  • ব্যাটারিঃ ৩৩৫০ মিলি অ্যাম্পিয়ার।

বডি এবং ডিসপ্লে: 

শাওমি এম,আই ৬ ফোনটির ৫.১৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি (৪২৮ পিপিআই, আইপিএস এলসিডি) বাঁকানো স্ক্রিন এবং চারপাশে স্টেইনলেস স্টিল কেসিং ব্যবহার করা হয়েছে। এবং এটি ৬০০ নিট পর্যন্ত উজ্জ্বলতা এবং বৈশিষ্ট্য ৪০৯৬ বাচক্লিঘত সমন্বয় স্তর। রাতের রাতে চোখ স্ট্রেন উপশম এর জন্য প্রদর্শনীর উজ্জ্বলতাটি নীচের দিকে ১ নট পর্যন্ত চলে যায়। ফোনটির ওজোন  ১৬৮ গ্রাম / ১৮২ গ্রাম (সিরামিক, ৬.৪২ ওজ).  এছাড়া, ডিভাইসটির সামনে ও পিছনে উভয় দিকেই বাঁকানো গ্লাস ব্যবহার করা হয়েছে যেটা শাওমি এমআই ৫ ফোনেও দেখা গিয়েছিল। এছাড়া , এই ফোনের প্রধান বৈশিষ্ট্য হল এর সেরামিক বডি। এর ফলে এই ফোনে একটা নতুন লুক চলে এসেছে। এম আই ৬ ফোনের ফ্ল্যাট ডিসপ্লে এই ফোনটিকে একটি নতুন মাত্রা এনে দিয়েছে।

ক্যামেরা:

শাওমি এম আই ৬ এর প্রধান বিশেষত্ব হল এর ডুয়েল-লেন্স রেয়ার ক্যামেরা সেটআপ,যা ফোনের বা দিকের কোণে থাকবে।ফোনটির সামনের দিকে রয়েছে একটি ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এবং পিছন দিকে ফ্লাশ সহ ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা রাখা হয়েছে। এবং এই ১২ মেগাপিক্সেল ডুয়েল প্রাইমারি ক্যামেরা আরো বিস্তৃত অ্যাঙ্গেল এবং টেলিফটো প্রযুক্তি সমৃদ্ধ যাতে আপনি দ্বিগুণ অপটিক্যাল জুম এবং ১০ গুণ ডিজিটাল জুম করতে পারবেন।  এবং এটি উন্নতমানের ছবি তুলতে সক্ষম।

কানেক্টিভিটি:

শাওমির এই ডিভাইস টি ৬০০ এমবিপিএস ডাউনলোড এবং ১০০ এমবিপিএস আপলোড গতির সাথে ৪ জি + নেটওয়ার্ক সমর্থন করবে। এবং সেই সাথে, এমআই ৬ স্মার্টফোনে রয়েছে ২ক্স২ ডুয়েল Wi-Fi যা দ্বিগুণ দ্রুত এবং আরো বিস্তৃত এলাকাজুড়ে এর নেটওয়ার্ক কভার করতে সক্ষম।  এটিতে ব্লুটুথ ৫ ভার্সন রয়েছে। এবং ফোনটি জি,পি,এস সমৃদ্ধ। তবে এতে কোন রেডিও কানেক্টিভিটি নেই। শাওমি এমআই ৬ ফোনটিতে,আই,ফোন ৭ কে অনুসরণ করে কোনো হেডফোন জ্যাক রাখেনি। অডিওটি ইউএসবি টাইপ-সি পোর্টের মাধ্যমে ট্রান্সফার বা পাঠানো হয়, এবং চার্জিং জন্যও তা ব্যবহৃত হয়।

সামনে কাচের নীচে আঙুলের ছাপ সেন্সর:

শাওমি এমআই ৬ ফোনের সামনের দিকে নিচে হোম বাটনের সাথে একটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর রয়েছে।  সেন্সরটি প্রদর্শনের নীচে অবস্থিত নয় এমন একটি গুজব ছড়িয়েছিল অ্যাপেলের সাথে। তবে শেষ পর্যন্ত এই সেন্সরটি টি নিচে হোম বাটনের পাশেই রাখা হয়েছে। ব্যাবহার্কারী এখন খুব সহজেই ফিঙ্গারপ্রিন্ট ব্যাবহারের মাধ্যমে তার ডিভাইস টিকে নিরাপত্তা দিতে পারবে।

বিশেষ সংস্করণ:

এমআই ৬ ফোনের মোট ৫টি বাহ্যিক সংস্করণ পাওয়া যাবে। সেগুলো হলো পার্পল, হোয়াইট, ব্ল্যাক, সিলভার এবং সিরামিক এডিশন যার মূল ক্যামেরার লেন্সের চারদিকে সোনার রিং থাকবে। যদিও  এমআই মিক্স ফোনেও এরকম একটি ভার্সন ছিল। এম,আই ৬ ফোনটিতে একটি প্রিমিয়াম রৌপ্য সংস্করণে রয়েছে যা একটি অতি-প্রতিবিম্বিত মিরর ফিনিস এবং রূপালী চার পার্শ্বযুক্ত 3D কার্ভ বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন।  এর অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্য হল এর সেরামিক বডি। যা চার পাশের বাঁকা সিরামিক শরীরের সঙ্গে যুক্ত। এই ফোনটির চারপাশে স্টেইনলেস স্টিল কেসিং ব্যবহার করা হয়েছে।  এই প্রিমিয়াম বৈকল্পিক, এছাড়াও 18-ক্যারেট সোনা থেকে তৈরি ক্যামেরা rims বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন যা একে আর্‌ও আকর্ষণিয় করে তুলেছে। এছাড়াও এটি সিম ট্রে সহ সীলমোহরযুক্ত এবং পানির স্প্ল্যাশ থেকে সুরক্ষিত।

অতিরিক্ত উল্লেখিত ফিচারঃ 

  • সেন্সর: ফিঙ্গার প্রিন্ট, অ্যাকসিলরোমিটার, গিয়ার, প্রক্সিমিটি, কম্পাস, ব্যারোমিটার.
  • মেসেজিংঃ এসএমএস (থ্রেডেড ভিউ), এমএমএস, ইমেইল, পুশ মেইল, আইএম.
  • ব্রাউজারঃ এইচ,টি,এম,এল ৫ (HTML 5)
  • দ্রুত ব্যাটারি চার্জিং (দ্রুত চার্জ ৩.০) সাপোর্ট।
  • এলার্ট এর ধরনঃ ভাইব্রেশন, MP3, WAV রিংটোন.
  • MP4/DivX/XviD/WMV/H.264 প্লেয়ার (player).
  •  MP3/WAV/eAAC+/FLAC প্লেয়ার (player).
  • ফোটো এবং ভিডিও এডিটর।
  • ডকুমেন্ট ভিউয়ার।
  • রংঃ সিরামিক কালো, কালো, নীল, সাদা।

শাওমি এম,আই ৫ এবং এম,আই ৬ এর মধ্যে পার্থক্য কি?

যেকোন নির্মাতা কোম্পানিই তাদের নতুন রিলিজ করা ডিভাইসে কিছু না নিছু উন্নতিকরন রেখে দেয়। যাতে এটি আকর্ষণীয় হয়ে উঠে এবং বাজার চাহদা পায়। তেমনি, শাওমি এম,আই ৫ এবং এম,আই ৬ এর মধ্যে কিছু পার্থক্য পরিলক্ষিত হয়। আসুন সেই ব্যাপারে আলোচনা করা যাক:

ডিসপ্লে ও ডিজাইনঃ  ডিসপ্লে এর ক্ষেত্রে এটি তেমন পরিবর্তন আনেনি। আগের মতৈই ৫.১৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে রয়েছে। তবে ডিজাইন এ ভিন্নতা এসেছে। এম,আই ৬ ফোনটিতে একটি প্রিমিয়াম রৌপ্য সংস্করণে রয়েছে যা একটি অতি-প্রতিবিম্বিত মিরর ফিনিস এবং রূপালী চার পার্শ্বযুক্ত 3D কার্ভ বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন কিন্তু এম্‌আই ৫ ছিল দুই পার্শক 3D কার্ভ সমৃদ্ধ।

ক্যামেরাঃ  শাওমি এম,আই ৫ এ ছিল ছবি তোলার জন্য পেছনে ছিল ১৬ মেগাপিক্সেল ৪ এক্সিস অপটিক্যাল ইমেজ টেবিলেজেশন প্রযুক্তি। কিন্তু, শাওমি এম আই ৬ এর প্রধান বিশেষত্ব হল এর ডুয়েল-লেন্স রেয়ার ক্যামেরা সেটআপ,যা ফোনের বা দিকের কোণে থাকবে। তাছাড়া, এম,আই ৫ এ ছিল ৪ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। আর এম আই ৬ এ রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা।

ব্যাটারিঃ   শাওমি এম,আই ৫ এ ছিল ৩০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি। এবং এম,আই ৬ এ রয়েছে ৩৩৫০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি। তবে উভয় ফোনে কুইক চার্জার প্রযুক্তি তে চার্জ দেওয়া যাবে।

হার্ডওয়্যারঃ  শাওমি এমআই ৫ এ ছিল স্ন্যাপ্নড্রাগন ৮২০ প্রসেসর, কিন্তু এমআই ৬ এ রাখা হয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ সিরিজের প্রসেসর। এই ফোনটি ছাড়া এই মুহূর্তে শুধুমাত্র স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৮ ফোনে এই প্রসেসর আছে।
এছারা, এমআই ৫ এ ছিল অ্যান্ডেনো ৩৫০জিপিইউ। কিন্তু এমআই ৬ এ অ্যাড্রিনো ৫৪০ জিপিইউ রেখে নির্মাতারা! সেই সাথে র‍্যাম্‌ও বেড়েছে এমআই ৬ ফোনের। এই ফোনটিতে র‍্যাম রয়েছে ৬ জিবি!! যেখানে এমআই ৫ ফোনে রাখা হয়েছিল,৩ জিবি এবং বিশেষ সংস্করণে ৪ জিবি র‍্যাম।  তাছাড়া অপারেটিং সিস্টেমে হিসেবে এমআই ৫ ডিভাইসটিতে ব্যবহার করা হয়েছিল অ্যান্ড্রয়েড ম্যার্শমোলো ৬.০। কিন্তু এমআই ৬ ভার্সনে লেটেস্ট অ্যান্ড্রয়েড নোগাট ৭.১.১ অপারেটিং সিস্টেম রয়েছে।

রিলিজ ডেট এবং মূল্যঃ 

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২৮ এপ্রিলেই শাওমির নতুন সংস্করণ টি বাজারে ছাড়া হবে। ৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ ক্ষমতা সম্পন্ন ডিভাইস টির মূল্য রাখা হয়েছে ২,৮৯৯ চীনা ইউয়ান (2,899 Chinese yuan). ডলার হিসেবে প্রায় $৪২০ ডলার। এবং ইউরো হিসেবে, £৩৩০ ইউরো। এবং ৬৪ জিবি স্টোরেজ ক্ষমতা সম্পন্ন ডিভাইস টির দাম রাখা হয়েছে, ২,৪৯৯ চীনা ইউয়ান বা  $৩৬৫ ডলারের কাছাকাছি বা £২৮০ ইউরো।

সুতরাং, বিশ্লেষন ভিত্তিক ভাবে পারফর্মেনস  এর  দিক দিয়ে শাওমির নতুন সংস্করণ শাওমি এমআই ৬ টি  এমআই ৫ এর চেয়ে ঢের এগিয়ে থাকবে বলে আশা করা যায়। শাওমি এমআই ৫ ও যথেষ্ট পাকাপোক্ত ভাবে মার্কেটে টিকে ছিল।এমআই ৬ ও যে ভাল বাজার চাহিদা পাবে, তা কেবল সময়ের ব্যাপার এখন মাত্র! বর্তমানে আই,ফোন এবং স্যামসাং এর প্রতিদন্দি কেবল শাওমি কেই বলা চলে। স্মার্টফোনের বাজারে এগিয়ে থাকতে চীনা অ্যাপল খ্যাত শাওমি এবার্‌ও ভাল মার্কেট প্লেসে জায়গা করে থাকবে এটা নতুন সংস্করণের যাচায়গত দিক থেকে ভালভাবেই বোঝা যাচ্ছে। এখন বাকীটা ব্যাবহারকারীরা ডিভাইস টি হাতে পাবার পরেই বুঝতে পারবেন।

আর্‌ও পড়ুনঃ 

 

Rubayed Drishty

1 comment