তথ্য জানার সহজ মাধ্যোম

শাওমি এমআই এ ১; বাজারে এলো শাওমির নতুন ডিভাইজ।

শাওমি এমআই এ ১
শাওমি এমআই এ ১
শাওমি এমআই এ ১

শাওমি এমআই এ ১; বাজারে এলো শাওমির নতুন ডিভাইজ।

Xiaomi Mi A1 হল  চীনের তৈরী প্রথম স্মার্টফোন, যার dual-rear camera আছে । প্রায় ছয় মাস আগে চীনা কোম্পানি মাই আই এ 1 এন্ড্রয়েড ওয়ান স্মার্টফোনের জন্য গুগলের সাথে কাজ করতে শুরু করেছে । অ্যান্ড্রয়েড এবং গুগল মিলে নতুন এক ডিভাইস চালু করেছে, যেটা শাওমি এমআই এ-1 এন্ড্রয়েড । শোনা যাচ্ছে, শাওমি এমআই এ ১ ব্যাপকভাবে “created by Xiaomi and powered by Google” এই টাইটেলে ব্যাপকভাবে বাজারজাত করা হচ্ছে । আমরা এম্নিতেই জানি শাওমি কি জিনিস! চায়না আই ফোন বলে হয়ে থাকে এই ডিভাইস টিকে! এর সাথে আবার যুক্ত হয়েছে গুগল মামু! তাইলে বুঝেন, মানুষকে কি পরিমাণ আকৃষ্ট করতে পারে এই ডিভাইস?

এই বছরের শেষ নাগাদ অ্যান্ড্রয়েড 8.0 ওরিও আপডেট করার জন্য ইতিমধ্যেই Mi A1 এর নিশ্চয়তা দেওয়া হয়েছে এবং এটি খুব প্রারম্ভিক হলেও, পরবর্তী বছরের অ্যান্ড্রয়েড পি লঞ্চটি ও কিন্তু আপডেটের সময়ের মধ্যে পড়ে । সূতরাং, এই ডিভাইস টা-যে ভালো মার্কেট পাবে তা বোঝায় যাচ্ছে! এর বেশ কিছু ফিচারও রাখা হয়েছে দর্শক দের আকৃষ্ট করার জন্য ।

এই চোখ কপালে তোলা ফিচার গুলোর ব্যাপারে আলোচনা করার আগে, আসেন শাওমি সম্পর্কে একটু ধারনা দেই আগেঃ

শাওমি বা শাওমি ইনকর্পোরেট হচ্ছে একটি প্রাইভেট চীনা ইলেকট্রনিক্স কোম্পানি ।বর্তমানে এটি বিশ্বের ৪র্থ বৃহত্তম স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান । শাওমির সদর দপ্তর, চীনের বেইজিং এ অবস্থিত । শাওমি ২০১০ সালের ৬ এপ্রিল মোট আটজন সহযোগীর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠা লাভ করে এবং ২০১০ সালের ১৬ আগস্ট তারিখে, শাওমি আনুষ্ঠানিকভাবে এর প্রথম অ্যান্ড্রয়েড-ভিত্তিক ফার্মওয়্যার এম,আই,ইউ,আই (MIUI) চালু করে ।  এবং এটি আনুষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশে বাজারজাত শুরু করে ২০১৬ সালের আগস্টে ।

শাওমির ব্যবসায়ের সবথেকে অভিনব উপায় হল, এটি পন্যের দাম প্রায় তৈরী দামের কাছাকাছি রাখে । যদিও এ ক্ষেত্রে ফোনের গুণগত মান এবং কর্মক্ষমতা অন্যান্য প্রিমিয়াম স্মার্টফোনের তুলনায় কোনও অংশে কম নয় । বরং, দাম অনুপাতে এর মান যথেষ্ট ভাল । ২০১৫ সালে শাওমি ৭০.৮ মিলিয়ন ইউনিট বিক্রি করে এবং কোম্পানিটি স্মার্টফোনের বিশ্ব বাজারের শেয়ারের প্রায় ৫ শতাংশ অধিকার করে নেই । এছাড়া, এমআইটি টেকনোলজি রিভিউ অনুসারে শাওমি ২০১৫ সালের ৫০টি অন্যতম স্মার্ট কোম্পানির তালিকায় ২য় স্থানে রয়েছে ।

তবে উল্লেখ্য, শাওমি ২০১৫ এর ৬ এপ্রিল এমআই ফ্যান ফেস্টিভ্যাল এর মাধ্যমে এর ৫ম জন্মদিন উপলক্ষে, অফার এবং ডিসকাউন্ট সুবিধাসহ একটি অনলাইন শপিং ডে পালন করে । শাওমি তার কাস্টমাদের জন্য সরাসরি পরিচালিত ওয়েবসাইট এমআই ডট কম এর মাধ্যমে ২১,১২,০১০ টি হ্যান্ডসেট বিক্রি করে, যা “২৪ ঘন্টার মধ্যে একক অনলাইন প্ল্যাটফর্মে সবচেয়ে বেশি মোবাইল ফোন বিক্রির” বিশ্ব রেকর্ড! এবং এই রেকর্ড  গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে স্থান করে নেয় ।

গত বছর মোবাইল ফোনের বাজারে শাওমি এমআই ৫ এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন সকলের দৃষ্টি কেড়েছিল । আর এবার এই চীনা কোম্পানিটি নিয়ে এসেছে আরো একটি ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস- শাওমি এমআই এ১ স্মার্টফোন ।

বকবক অনেক করলাম, এবারে চলুন ফিচার কী কী আছে এক নজরে দেখে নেওয়া যাকঃ

লুক এবং ডিজাইনঃ

সংক্ষিপ্তভাবে, Mi A1- র নকশাটি OnePlus 5 এবং Xiaomi Redmi Note 4. এর মধ্যে একটি প্রেমচিহ্ন বলা যেতে পারে । ফোনটির দেখার পর মূলত আপনাকে রেডমী নোট 4-এর কথা মনে করিয়ে দেবে, এতে অবাক হবার কিছু নাই মামা! দু’টোই তো এক গোয়ালের গরু, তাইনা? তবে এটির পিছনে লুক টা অনেকটা OnePlus মত অনেক দেখায় ।

প্রথম নজরে এ, Mi A1 তার minimalistic  প্রিমিয়াম ডিজাইন এবং পুরো মেটাল চ্যাসিস বডিটাই মূলত ইম্প্রেস করবে আপনাকে । ফুল মেটালিক বডির এই স্মার্টফোনটিতে আছে ৫.৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি ডিসপ্লে । এটা অন্যান্য শাওমি ডিভাইজ গুলোর তুলনায়, তুলনা মূলক ভাবে স্লিম এবং ব্যবহারে বেশী আরাম দায়ক হবে । খুব বেশী ভারি বা কুব বেশী হালকা করা হয়নি, যতটুকু ওজন হলে হাতে ধরে আরাম পাওয়া যাবে, ততটুকুই ওজন রাখা হয়েছে । ফোনটির ওজন মূলত 165 গ্রাম । এছাড়া, ৫.৫ ইঞ্চির ডিসপ্লে । আপনি এক হাতেই ফোন টি কন্ট্রোল করতে পারবেন ।

পিছনে ফিঙ্গার প্রিন্ট স্কানার অপশন রয়েছে । আপনি এটাও এক হাত দিয়েই কন্ট্রোল করতে পারবে । যখন দরকার, শুধু পকেট থেকে বের করবেন, আর চাপ দিবেন ব্যাস! হয়ে গেল! একটি সাইড বাটন আর ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর আপনার ব্যবহার কে নতুন মাত্রা এনে দিবে! নিচে একটি ইউ,এস,বি সি কানেক্টর রয়েছে, এটির সাথে সংযোগ করে আপনি জোরে একটি স্পীকার বাজাতে পারবেন এবং ৩.৫ এমএম জ্যাক লাগাতে পারবেন ।

এই ফোনটি আপনার ফোনের সেটআপের মত পছন্দ অনুযায়ী তার উপর নির্ভর করে ক্যাপাসিটিভ অ্যানড্রয়েড কীগুলি ব্যবহার করছে । তবে, সামগ্রিকভাবে, আমি মনে করি এটি এখন পর্যন্ত মূল্য সেগমেন্টে এটিই সেরা ডিজাইনের Xiaomi ডিভাইস । এটির একটি রিফ্রেশিং নতুন ডিজাইন ল্যাঙ্গুয়েজ রয়েছে, যা আমরা সম্প্রতি Mi Max 2 এর সাথে দেখেছি ।

স্পেসিফিকেশনঃ

Xiaomi Mi A1 একটি অক্টা-কোর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন 6২5 প্রসেসর দ্বারা পরিচালিত হবে যা আমরা পূর্বে Redmi Note 4 এবং Mi Max 2 এ ব্যবহার হতে দেখেছি । ৪ জিবি র‍্যাম রাখা হয়েছে ডিভাইস টিতে । সেই সাথে আছে ৬৪ জিবি স্টোরেজ এবং একটি মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহার করে ১২৮ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ বারানো যাবে । অন্যান্য শাওমি ডিভাইজের মতই, Mi A1 একটি হাইব্রিড ডুয়াল সিম ডিজাইন রয়েছে যার মানে আপনি দুটি ন্যানো সিম বা একটি ন্যানো সিম এবং একটি মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন ।

এটি অ্যানড্রয়েড 7.1.2 নওগাট অপারেটিং সিস্টেমে চলবে । যা কোনও অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য পাওয়া নুগ্যাটের সবচেয়ে সাম্প্রতিক বা লেটেস্ট সংস্করণগুলোর একটি । গুগল বলেছে যে Mi A1 ক্রেতাদের ফটো এবং ভিডিওগুলির জন্য সীমাহীন উচ্চ মানের স্টোরেজ থাকবে, যা সমস্ত অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনগুলির মধ্যে থাকা একটি সাধারণ বৈশিষ্ট্য এবং এটি তাদের প্রকৃত মানের আনলিমিটেড ছবি এবং ভিডিও ব্যাকআপের  সুবিধা দিচ্ছে, যেমন তা গুগলের পিক্সেল ফোন গুলতে আছে। এছাড়া এটি নতুন অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ওরিও ৮.০ এও আপডেট করা যাবে ।

ডিসপ্লেঃ

Mi A1 একটি 5.5 ইঞ্চির ফুল এইচডি ডিসপ্লেটিকে 2.5 ডি বাঁকানো গ্লাস, এবং কোর্নিং গরিলা গ্লাস 3 দিয়ে একদম সুরক্ষায় শীর্ষে রেখেছে । ডিসপ্লেটি বেশ উজ্জ্বল এবং টেক্সট এবং ছবি তীক্ষ্ন । ফোনটি একটি পূর্ণ-এইচডি (1080×1920-পিক্সেল) রেজল্যুশন এর ফলে সূর্যের আলোতেও ডিসপ্লে দেখা যাবে । তাই রোদের মাঝেও এখন আপনি রাস্তায় হাটতে হাটতে চ্যাটিং করতে পারবেন ।

ক্যামেরাঃ

Xiaomi Mi A1 এর দ্বৈত ক্যামেরা তার সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্যগুলির মধ্যে একটি । এটি শাওমির প্রথম ডুয়েল ক্যামেরা প্রযুক্তির একটি ফোন । ধারণা করা হচ্ছে বাজারে বিদ্যমান আইফোন ৭ এস বা ওয়ান প্লাস ৫ এর চেয়ে ভালো ছবি তুলবে এই স্মার্টফোনটি । কারন এতে ব্যবহার করা হয়েছে ২টি ডুয়েল ক্যামেরা, যা ১২ মেগাপিক্সেলের। যা কিনা ওয়াইড এঙ্গেল ও টেলিফটো দুটোতেই ভালো মানানসই হবে । এতে ব্যবহার করা হয়েছে ২এক্স অপটিক্যাল লেন্স । আর সেইসাথে সেলফি তোলার জন্য থাকছে ৫ মেগাপিক্সেলের আরেকটি ক্যামেরা । পিছনের ১২ এমপি ওয়াইড-এঙ্গেল লেন্স এবং ১২ এমপি টেলিফো লেন্স রয়েছে যা একসঙ্গে কাজ করবে এবং depth-of-field ইফেক্ট ফেলবে । যেটাকে আমরা মূলত বোকস ইফেক্ট বলি! তাই, এই ফোন ব্যবহারে আপনাকে আর কষ্ট করে ফটোশপ দিয়ে বোকস ইফেক্ট ফেলা লাগবে না! জাস্ট ক্লিক করবেন, একা একাই হয়ে যাবে! তাছাড়া, টেলিফোটো লেন্স এর কারণে আপনি 2x অপটিক্যাল পর্যন্ত জুম করতে পারবেন ।

ব্যাটারিঃ

দীর্ঘ সময় ফোনটি ব্যবহার করার জন্য এতে থাকছে নন-রিমুভেবল ৩০৮০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি । দ্রুত চার্জিং এর জন্য থাকছে ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি । এর ফলে ব্যবহারকারী রা খুব দ্রুত ফোন চার্জ দিতে পারবে । ৩০৮০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি ফোনটিকে ১৫ ঘন্টার উপর ব্যাক-আপ দিবে ।

আশা করি আপনি ফিচার গুলো বুঝতে পেরেছেন । চলুন এক নজরে আবারও ফিচার গুলো দেখে নেওয়া যাকঃ

১। অক্টা-কোর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন 6২5 প্রসেসর ।

২। অ্যানড্রয়েড 7.1.2 নওগাট অপারেটিং সিস্টেমে চলবে এবং ওরিও ৮.০ তে আপডেট করা যাবে ।

৩। ৫.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে ।

৪। 1080 x 1920 pixels রিজলেশন ।

৫। ৬৪ জিবি ইন্টারনাল মেমরি । মাইক্রো এসডি দিয়ে ১২৮ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে ।

৬। ডুয়েল সিম ।

৭। ৪ জিবি র‍্যাম ।

৮। ১২ মেগাপিক্সেলের ডুয়েল ক্যামেরা, ৫ মেগাপিক্সেলের ফন্ট ক্যামেরা ।

৯। 2x অপটিক্যাল জুম এবং এল,ই,ডি ফ্ল্যাশ ।

১০। 2160p@30fps, 720p@120fps ভিডিও ফরমেট ।

১১। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ।

১২। নন-রিমুভেবল ৩০৮০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি ।

১৩। ফাস্ট চার্জিং টেকনোলজি ।

১৪। তিনটি রঙ-এ ফোনটি পাওয়া যাবে কালো, গোল্ড এবং রোজ গোল্ড ।

১৫। ফোনটির দাম ধরা হতে পারে, ২৪০ ইউরো বা ২৩৪ ডলার মত । যা বাংলাদেশী প্রায় ২০ হাজার টাকার মত ।

এছাড়াও অন্যান্য সাধারণ ফিচার গুলোও আগের মতই বিদ্যমান রয়েছে ।

পরিশেষে, এটাই বলব, বিগত ফোন গুলোর মত শাওমির এই সংস্করণটাও ভাল ব্যবসা সফল হবে বলে আশা করতে পারি । এটা যে আহামরি কোন বিশেষ বিশেষ ফিচার রেখেছে, তাও কিন্তু না! ‘মানে কেটে যায়’ ব’লে একটা কথা আছে না? এ ক্ষেত্রেও তাই! কম মূল্যে ভাল ফিচারের জন্য শাওমির তুলনা হয়না! সেইসাথে এবার গুগলের মত কোম্পানি যৌথ ভাবে ফোনটি বানিয়েছে । তাই, অনেকটা নামে পরেও মানুষ এই ফোনের দিকে ঝুকে পরবে! ফোনটি আসলে ব্যবহারে কেমন হবে, তা ব্যবহার করার পরেই জানা যাবে! আর সেই জন্য বাজারে ফোনটি আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করাই লাগবে! যায়হোক, মিঃ শাওমি, শুভকামনা রয়লো আপকামিং ফোনের জন্য ।

আরও পড়তে পারেনঃ

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Close