নকল চার্জার বা ক্যাবল

নকল চার্জার বা ক্যাবল আপনার স্মার্টফোনের ব্যাটারি নষ্টের জন্য অন্যতম দ্বায়ী! জানেন কি সেটা?

নকল চার্জার বা ক্যাবল
নকল চার্জার বা ক্যাবল

নকল চার্জার বা ক্যাবল আপনার স্মার্টফোনের ব্যাটারি নষ্টের জন্য অন্যতম দ্বায়ী! জানেন কি সেটা?

চার্জের জন্য চার্জার তো লাগবেই তাইনা? তাছাড়া,চার্জ দিবেন কিভাবে?(!!) সূতরাং,এই চার্জার অতি-গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। কিন্তু, এই চার্জার্‌ও অনেক সময় আপনার ক্ষতির কারণ হয়ে দাড়াতে পারে,তা কি জানেন? নকল চার্জার বা ক্যাবল আপনার স্মার্টফোনের ব্যাটারি নষ্টের জন্য অন্যতম কারণ হয়ে দাড়াতে পারে।

আপনি হয়ত ভেবে থাকবেন যে, আপনার ফোনের চার্জার টি কিছু ক্ষুদ্র তারের সমন্বয়ে একটি প্লাগ এর মাধ্যমে গঠিত। তাই কি? না! আসলে,সব চার্জার সমান ভাবে নির্মিত হয় না।
কিছু চার্জার আপনার ফোনের ব্যাটারি ফুল বা পূর্ন করতে বেশি সময় নেয়। আবার কোনোটি অনেক দ্রুত ফুল চার্জ করে দেয়। আবার অনেক গুলো খারাপ আছে, যেগুলো দ্বীর্ঘদিন ব্যবহারে আপনার ব্যাটারি ড্যামেজ করে দিতে পারে।
সৌভাগ্যবসত, চার্জার বোঝা কঠিন নয়, এবং কয়েকটি প্রাথমিক স্টেপ আপনাকে সমস্যা থেকে রক্ষা করবে। আসুন জেনে নেই, সেই সম্পর্কে বিস্তারিতঃ

ফেইক চার্জারের ঝুঁকিঃ 

আপনার মোবাইল এর চার্জারের কিছু বেসিক কাজ থাকে। এটি আপনার ডিভাইসে পাওয়ার সাপ্লাই করে।এটি চার্জিং সার্কিট কে সক্রিয় করে,যা আপনার ব্যাটারি কে চার্জ পূর্ণ করে আয়ুস্কাল বৃদ্ধি করে।
এই কারণে, ফোন এর চার্জার কে আরো যথাযোগ্যভাবে অ্যাডাপ্টার নামকরণ করা হয়। তাদের কাজ শুধু আপনার ডিভাইস চার্জ করতে নয়, এটা একটা স্তর আপনার ফোন বা ট্যাবলেট হ্যান্ডেল করতে ডিসি পাওয়ার’এ রূপান্তর করে।

পাওয়ার অ্যাডাপ্টার আপনার ফোনে কোটের মাধ্যমে সহজ ভাবে বিদ্যুৎ হস্তান্তর করে। যেটা আপনার দেখতে সহজ মনে হতে পারে।কিন্তু,প্রক্রিয়া টা অতটা সহজ নয়।
এখানে এই প্লাগ এর ভিতরে অনেক গুলো অংশ আছে।
একটি নিয়ন্ত্রক বা রেগুলেটর, উদাহরণস্বরূপ,যা আপনার ফোনের ফুল চার্জ হয়ে গেলে সংকেত দেয়।
তাই এটি অনবরত ভাবে ফোনে সরবরাহ করার চেষ্টা করে না(যদিও এটা এখনও আপনার সকেট থেকে বিদ্যুৎ টেনে আনবে,এমনকি যদি আপনি ফোনটির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে থাকেন।). প্রতিনিয়ত ওভার-চার্জিং আপনার ব্যাটারির লাইফ-টাইম কমিয়ে দিতে পারে।

এই ধরনের উপাদান ক্ষমতা আপনার হ্যান্ডসেট কে স্পাইক এবং বিপরীত কিছু থেকে সুরক্ষিত রাখেঃ খুব সামান্য পাওয়ার টানে।
কিছু চার্জার লাগানোর পর মনে হবে এটা আপনার ফোনে চার্জ নিচ্ছে কিন্তু ঘন্টা খানেক পরে চেক করে দেখা যাবে চার্জ যথাযথ ভাবে হয়নি।,
আপনার ব্যাটারি শুধু মাত্র ঝুঁকিতে একমাত্র জিনিস নয়।
গুগল কর্মচারী Benson Leung, USB Type-C প্রডাক্টের পর্যালোচনার সম্পর্কে নিশ্চিত মানের পণ্য সম্পর্কে জানার জন্য তাঁর মিশন  শুরু  করেছিলেন। ফলস্রুতিতে, খারাপ ক্যাবলের কারণে তার $1,500 Chromebook Pixel নষ্ট হয়।

একটি সস্তা ঊশব তার কিনে অর্থ সংরক্ষণ করার পরিণামে,পরবর্তিতে আপনাকে অনেক বেশি টাকা খোয়ানোর সম্মুকক্ষিণ হতে হবে!
কিছু সস্তা চার্জার দিয়ে নির্দিষ্ট নিয়ন্ত্রক মান পূরণ নাও হতে পারে। তারা ক্ষতিকর উপকরণ দিয়ে তৈরী যা আপনার বা পরিবেশ জন্য হুমকি স্বরূপ হতে পারে।
এই সব ফেইক চার্জার ফিজিক্যালি ক্রুটিপূর্ণ হতে পারে, যখন আপনি এদের আন-প্লাগ করবেন তখন সেটা বুঝা যায়।

আপনার কি করা উচিৎ?
আপনার কি করা উচিৎ?

আপনার কি করা উচিৎ? 

আপনার ফোনের অফিসিয়াল চার্জার টা সর্বদা ব্যবহার করুন: 

আপনার ফোনের অফিসিয়াল চার্জার টা সর্বদা ব্যবহার করা’টাই সবথেকে ভাল হয়। কারণ,এটি আপনার ফোনের জন্য আদর্শ হিসেবেই তৈরী করে কোম্পানি। কোম্পানি যখন ফোনটি তৈরী করে তখন এর সাথে প্রয়োজনীয় জিনিস গুলোও যথাযথ ভাবে বানিয়ে থাকে।যাতে গ্রাহক কে ভোগান্তিতে না পরতে হয়।
আপনার কাছে হয়ত ডজন-খানেক  ‘microUSB’  চার্জার  থাকতে পারে,কিন্তু তা কখনোই ফোনের অরিজিনাল চার্জারের মতো হতে পারবে না।
তবে যদি আপনি আপনার চার্জার টি বহন না করতে পারেন তবে সেক্ষেত্রে এক্‌ই পাওয়ারের এডাপ্টার আপনার ব্যাগ বা কাছে রাখতে পারেন,যখন আপনি বাড়ির বাইরে বা দূরে কোথাও যাবেন।

আবার ধরুন আপনি গাড়িতে আছে, এবং সেই সময়ে ডিভাইসে চার্জের প্রয়োজন। তখন কি করবেন? অনেক নির্মাতারা ডিভাইসের চার্জার প্রস্তাব করে না।
আপনি আপনার ডিভাইস’টির ভ্যানচার টা ব্যবহার করে এক্‌ই ধরনের কোন একটি চার্জার কিনে নিতে পারেন।
পরবর্তী পদক্ষেপসমূহ আপনাকে কয়েক জিনিষের উপর নজর রাখতে সাহায্য করবে।

ইনপুট / আউটপুট মাত্রা পরীক্ষা করে দেখুন:

কোম্পানি বানানোর সময়,অ্যাডাপ্টারের পাওয়ারের সাথে আপনার ফোনের বিদ্যুৎ সাপ্লাই এর সঠিক মাপ বা পরিমান নির্ধারণ করে দিয়েছে। আপনি যখন দ্বিতীয় কোন চার্জার ব্যবহার করবেন তখন নিশ্চিৎ হয়ে নিন, ইনপুট / আউটপুট মাত্রা আপনার ডিভাইস এর মাত্রা’র সাথে মিলছে কি-না! আপনার অ্যাডাপ্টারের দিকে তাকান। 100-240V এর একটি ইনপুট স্তর ভোল্টেজ গ্রহণযোগ্য পরিমাণ দেখায়। এই পরিসীমা উপরে একটি নালী বা উৎস থেকে এটি’র প্লাগিং চার্জার ধ্বংস করে দিতে পারে।

এবার আউটপুট এর দিকে লক্ষ করুন। আপনার ফোনের ব্যাটারি ফুল চার্জ হতে যদি ৪.২ ভোল্ট প্রয়োজন হয়, তবে ঠিক এই পাওয়ারের এডাপ্টার ব্যবহার করুন,যেটা এই মাত্রা পর্যন্ত পৌছাতে পারে।
এক্ষেত্রে আপনি যদি ৩ ভোল্টের এডাপ্টার ব্যবহার করেন তবে সেটা আপনার ৪.২ ভোল্টের ব্যাটারিতে চার্জ করতে সক্ষম হবে না। তাই অনেক সময় দেখা যায়, পুরনো ফোনের চার্জার দিয়ে নতুন ব্রান্ডের ফোনে চার্জ দেওয়া যাচ্ছে না।

এরপর এম্পারেজের(amperage) দিকে লক্ষ করুন। অনেক স্মার্টফোনের চার্জার 1 A আউট্‌পুট প্রদান করে। কিন্তু,আপনার অ্যাডাপ্টারের শুধুমাত্র 500 mA, বিদ্যুৎ পরিবাহিত করার ক্ষমতা আছে, এক্ষেত্রে আপনার ডিভাইসের আর্‌ও প্রয়োজন হয়। তখন হয়ত,আপনার চার্জার স্লো হয়ে যেতে পারে, নাহয় ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে যেতে পারে। কিছু ডিভাইস এ, চার্জার যথেষ্ট শক্তি সরবরাহ না করে তবে তা গ্রহণ করবে না। এখন অনেক ট্যাবলেট আসছে যেগুলো ২ অ্যাম্পিয়ার ক্ষমতা সম্পন্ন এডাপ্টার রয়েছে।

সার্টিফিকেশন দেখুন:

কিছু সার্টিফিকেশন যেমন,CE. কিভাবে প্রস্তুত-কারক একটি এলাকাতে মান নিয়ন্ত্রণ করতে পারে তার ধারণা দেন। RoHS সার্টিফিকেশন দেখায় যে একটি পণ্য’তে  নির্দিষ্ট বিপজ্জনক পদার্থ নেই। এই প্রস্তাবের নিশ্চয়তা যে একটি পণ্য, শুধুমাত্র আপনার ডিভাইসের ক্ষতির কারণ নয় বরং, আপনি,আপনার বাড়ি এবং পরিবেশের উপর্‌ও প্রভাব ফেলতে পারে।
যদি আপনার আইফোন থাকে,তবে আই,পড তৈরীর লগো দেখুন।
এই কোম্পানি তার পণ্যের যন্ত্রানুষঙ্গ বিকাশ এর জন্য অ্যাপল এর লাইসেন্সিং প্রোগ্রাম রয়েছে। নাম সত্ত্বেও, ভাল হিসাবে এটি iPhone ও iPad এর জন্য প্রযোজ্য। 

আপনি উদ্বিগ্ন আপনার চার্জার সম্পর্কে?

স্মার্টফোন দীর্ঘতম ব্যাটারি লাইফ এর জন্য পরিচিত নয়। এখনও, আপনার ডিভাইস যদি দ্রুত চার্জ নির্গমন করে বা ধীরে ধীরে চার্জ গ্রহন করে, তাহলে আপনার চার্জার অন্তত বার দু’য়েক চেক করুন।  এর মধ্যে কোনটি’তে সমস্যা থাকতেই পারে। সেটা সমাধানের চেষ্টা করুন। ইলেক্ট্রনিক যন্ত্রসমূহ ভাল রাখতে হলে,যত্ন নেওয়া আবশ্যক। ডিভাইসের ব্যাটারি নষ্টের জন্য বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভূলভাল চার্জার ব্যবহার দ্বায়ী! তাই সেক্ষেত্রে সচেতন থাকুন।

ধন্যবাদ।

 

Rubayed Drishty

2 comments