তথ্য জানার সহজ মাধ্যোম

ক্যাবল এবং ফাইবার ইন্টারনেট-এই দু’য়ের মধ্যে কোনটি বেশি ভালো?

ক্যাবল এবং ফাইবার
ক্যাবল এবং ফাইবার
ক্যাবল এবং ফাইবার 

ক্যাবল এবং ফাইবার ইন্টারনেট-এই দু’য়ের মধ্যে কোনটি বেশি ভালো?

ক্যাবল এবং ফাইবার ইন্টারনেট দুইটাই ইন্টারনেট ব্যাবহারের অন্যতম মাধ্যম। কিন্তু এই দু’য়ের মধ্যে কোনটা বেশি ভাল হবে বা কোনটা ব্যাবহার করবে এ নিয়ে অনেকেই দ্বিধাতে থাকে।

প্রিয় পাঠক,আজ আমরা আলোচনা করব, ক্যাবল এবং ফাইবার ইন্টারনেট সম্পর্কে।

ক্যাবল ইন্টারনেট কি?
ক্যাবল ইন্টারনেট কি?

ক্যাবল ইন্টারনেট কি?

ক্যাবল ইন্টারনেট এক্সেস হলো ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট এক্সেস এর একটি মাধ্যম।যেটি অফিস,বাড়ি কিংবা ব্যাবসার জন্য উচ্চ গতির ইন্টারনেট বহন করে থাকে। যেহেতু এটা মূলত একটি স্থানীয় টেলিফোন প্রদানকারী বা তারের কোম্পানির মাধ্যমে দেওয়া হয় তাই এটি খুব এক্সেসেবল। অনেক জায়গা’তেই প্রাপ্তিসাধ্য উচ্চগতির ইন্টারনেট হিসেবে এটিই প্রথম কোন মাধ্যম ছিল।ক্যাবল ইন্টারনেট যুক্তিসঙ্গতভাবে নির্ভরযোগ্য কারণ বিশেষজ্ঞদের মতে,’যারা ব্যাবসায়ী কাজে ইন্টারনেট ব্যাবহার করে ক্যাবল ইন্টারনেট তাদের জন্য উত্তম।’

ক্যাবল ইন্টারনেট এর ডাউনলোড গতি সাধারণত প্রতি সেকেন্ডে ২০ থেকে ১০০ মেগাবাইটস পর্যন্ত হয়ে থাকে। ছোট ব্যবসার জন্য, ক্যাবল ইন্টারনেট এর প্রতি মাসে একটা সাশ্রয়ী মূল্যের বিকল্প প্যাকেজ নির্ধারণ থাকে।যেটা প্রায় সবাইই ব্যাবহার করতে পারে  সাশ্রয়ী মূল্যে। যদিও অনেক ছোট ব্যাবসার জন্য ক্যাবল ইন্টারনেট থেকে ভাল সেবা পেয়ে থাকে কিন্তু এর কিছু নেগেটিভ দিক্‌ও আছে।যেগুলো জানা উচিৎ.
ক্যাবল ইন্টারনেট সঙ্গে, লেটেন্সি একটি সমস্যা হতে পারে. যেমন ধরুন,আপনার ক্যাবল ইন্টারনেট স্পিড ১০০ এম,বি,পি,এস। এখন আপনি যদি আপনার ইন্টারনেট আশেপাশের আর্‌ও ৪ জনের সাথে শেয়ার করেন তবে এই ১০০ এম,বি,পি,এস স্পিড আপনাদের ৫ জনের মাঝে ভাগ হয়ে যাবে। যার ফলে দেখা যাবে আপনার ইন্টারনেট অনেক স্লো কাজ করছে।

ক্যাবল ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে?

ক্যাবল ইন্টারনেট টেলিভিশনের মত একই প্রযুক্তি ব্যাবহার করে কাজ করে। একটি সমাক্ষ তারের মাধ্যমে ডাটা প্রবাহিত করা হয়। একধরনের তামার পাতলা স্বচ্ছ তন্তু দিয়ে তৈরী যেটার বাইরে প্লাস্টিকের আবরণ থাকে।যার মধ্য দিয়ে তড়িৎ আকারে ডাটা প্রবাহ করা হয়।
ক্যাবল ইন্টারনেটের জন্য,আপনার লোকেশন অর্থাৎ আপনার বাড়ি কিংবা অফিসে একটি তাদের মডেম এবং আপনার অপারেটর এর অবস্থানে একটি তারের মডেম সমাপন সিস্টেম থাকা প্রয়োজন। এই মডেম আপনার ডিভাইস কে ইন্টারনেটের সাথে কানেক্ট করে। একটি কয়েক্স ক্যাবল এক্‌ই সাথে, ইন্টারনেট সংযোগ ও টেলিভিশন এক্সেস প্রদান করতে পারে। তবে এর জন্য প্রচুর ব্যান্ডউইথ থাকে আবশ্যক।

ফাইবার বা ফাইবার অপটিক ইন্টারনেট
ফাইবার বা ফাইবার অপটিক ইন্টারনেট

ফাইবার বা ফাইবার অপটিক ইন্টারনেট কি?

ফাইবার বা ফাইবার অপটিক হলো,মূলত একধরনের পাতলা, স্বচ্ছ তন্তু বিশেষ যা সাধারণত কাচ অথবা প্লাস্টিক দিয়ে বানানো হয়,যেটি আলো পরিবহনে ব্যবহৃত হয়।
এটি উচ্চ গতির ইন্টারনেট বা তথ্য প্রবাহের আরেকটি বিকল্প প্রযক্তি। এর মাধ্যমে লম্বা দুরত্বে অনেক কম সময়ে বিপুল পরিমাণ তথ্য পরিবহন করা যায়। অপটিক্যাল ফাইবার সাধারণত টেলিযোগাযোগের ক্ষেত্রে বহুল ব্যবহৃত হচ্ছে। যদিও ফাইবার অপটিক ইন্টারনেট ইনস্টল করার প্রণালী একটু জড়িত হয়, আসলে এটি বাণিজ্যিক গ্রেড প্রস্তাব প্রতিসম টাইপ এর ব্যান্ডউইথ. এটা এন্টারপ্রাইজ এবং ব্যবসার বাজারে জন্য একটি চমৎকার পছন্দনীয় করে তোলে।

ফাইবার অপটিক ইন্টারনেট দারুন নির্ভরযোগ্য।এটা একটি প্যাসিভ পদ্ধতি এবং কম বিদ্যুৎ বিভ্রাটের বা অন্যান্য অবস্থা সময় ডাউন হয়ে যেতে পারে। পৃথিবী ব্যাপী বহু বড় বড় ইন্টারনেট ডাটা সেন্টার গুলোকে ফাইবার-অপটিক ক্যাবলের মাধ্যমে কানেক্টেড রেখেছে। 

ফাইবার ইন্টারনেট কিভেবে কাজ করে?

ফাইবার অপটিক ক্যাবল কাচ বা প্লাস্টিকের তন্তু যে বিদ্যুতের পরিবর্তে আলো প্রেরণ করে।আপনার ডাটা, এটি একটি ফোন কল বা একটি পডকাস্ট থাকবে, এই অবস্থায় আলো’র ডাটা কে মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।
এই প্রক্রিয়া পুরোপুরি অভ্যন্তরীণ প্রতিফলন এর কারণে কাজ করে।

যখন আলো কোন ধাতবের উপর পড়ে তখন এটি শোষিত হতে পারে, প্রতিফলিত বা প্রতিসৃত হতে পারে।
ফাইবার অপটিক ক্যাবলের মধ্যদিয়ে আলো চলার সময় তা বারবার ভেতরে ক্যাবলের গায়ে লাফিয়ে লাফিয়ে গমন করে। যদি আলো ক্যাবলের শোষিত হয়ে যায় তবে শেষ মাথা পর্যন্ত কানেকশন পৌছাবে না। বিধাই কাজ্‌ও হবেনা।  আবার যদি আলো ক্যাবলের মধ্যে রিফ্লেক্টেড হয়ে যায়  তবে তা অপর প্রান্তে দেখা যাবে না। কাজ করার জন্য, আলো ক্রমাগত এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত পর্যন্ত  প্রতিফলিত হতে হবে।

এই কারণে, তন্তু দুটি স্তর নিয়ে গঠিতঃ একটি কোর (core) এবং অপরটি(cladding) বা পরিহিত।ভিতরে এবং বাইরে উভয় ধরনের স্তর কাঁচ দিয়ে তৈরী।যেমন টা সিলিকন ডাই অক্সাইড হয়। কিন্তু বহিঃ পরিহিত অন্যান্য উপকরণ গুলো মেশানো হয়। কোর এর চেয়ে প্রতিসরণ এর একটি নিম্ন সূচক অর্জনে জন্য। যদি ক্লাডিং একটি উচ্চতর সূচক হয়,তব্র আলো সংক্রমণ এর সময় তারের অব্যাহতি হবে।

ক্যাবল এবং ফাইবার এর মধ্যে পার্থক্য কি?

  • ফাইবার প্রযুক্তিতে কাঁচের ছোট,নমনীয় তন্তুর মত আলো’র মাধ্যমে তথ্য  প্রেরণ করা হয়। এটির মাধ্যমে তথ্য অনেক দূর অবধি প্রেরণ করা যায়। বাজারে কম ফাইবার অপটিক ভিত্তিক ইন্টারনেট সেবা প্রদানকারীর আছে।
  • আর পরম্পরাগত, ক্যাবল মাধ্যমে ইন্টারনেট ডেটা প্রেরণ করতে, ক্যাবল টিভি অবকাঠামো ব্যবহার করা হয়।যদিও ক্যাবলের মাধ্যমে ইন্টারনেট আপনার টেলিভিশন হস্তক্ষেপ না হলেও, আপনি আপনার প্রতিবেশীদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন। বেশিরভাগ ফোন সেবা কোম্পানীগুলোও ক্যাবল’র মাধ্যমে ইন্টারনেট অফার করে থাকে। কারণ এটা প্রায় যেকোন এলাকাতেই প্রবেশযোগ্য।

এই দু’য়ের মধ্যে কোনটি বেশি ফাস্ট?

এ দু’য়ের মধ্যে ফাইবার ব্যাবহারে তুলনামূলক দ্রুততর এবং সহজ হয়। ফাইবার ব্যাবহার করে ডাউনলোড স্পিড ১ গিগাবাইট পার সেকেন্ড- পর্যন্ত পাওয়া যায়। সেই তুলনায় ক্যাবল ব্যাবহারে সর্বচ্চ ২০০ মেগাবাইটস পার সেকেন্ড-পর্যন্ত স্পিড পাওয়া যেতে পারে। কিন্তু তার মানে এই নয় যে, যদি আপনি ফাইবার ইন্টারনেট এর জন্য সাইন আপ করেন, তবে এটা আপনার জন্য দ্রুত-তর হবে।

ইন্টারনেট সংযোগের গতি বা স্পিড নির্ভর করে বস্তুত  ব্যাবহারকারীর সংখ্যার বা  ফ্যাক্টরের উপর।যদি একই সময়ে আপনার আশেপাশে অনেক মানুষ ইন্টারনেট অ্যাক্সেস করে থাকে, আপনার নেট স্পিড কমে যাবে এবং আপনার ভিডিও প্রায়শয় বাফার করতে থাকবে।  এই কথা মূলত তারের সঙ্গে বিশেষভাবে সত্য, তবে ফাইবার এর ক্ষেত্রে এটি অনাক্রম্য নয়। তাছাড়া কিছু কোম্পানি টাকার পরিমানের উপর নির্ভর করে ইন্টারনেট স্পিড এর সেবা প্রদান করে থাকে। তাই ইন্টারনেট কানেকশন স্পিড বা ব্যাবহারের সুবিধা নির্ভর করছে আপনার কাজের ধরন এবং আপনার উপর।

কোনটি আপনার জন্য বেশি সুবিধা জনক হবে? 

ফাইবার তুলনামূলক ভাবে বেশি সুবিধা প্রদান করে থাকে। কেননা,এতে অনেক দ্রুত তথ্য প্রেরণ করা যায়,এটিকে দীর্ঘ দুরত্বে যোগাযোগের জন্য উপর্যুক্ত ভাবে তৈরী করা হয়েছে।যার কারনে এর ইন্টারনেট ক্ষমতা অনেক বেশি হয়।এছাড়া এটি বিদ্যুৎ বিভ্রাটের সময় কম ক্ষতির সম্মুক্ষীন হয়।
যেহেতু,এটি কাঁচ বা প্লাস্টিকের তৈরি, তাই তারা বিদ্যুতের লাইন, বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, বা বাজ থেকে কম হস্তক্ষেপ বা বিভ্রান্তি থেকে রক্ষা পেতে সমর্থ হয়।

তবে ক্যাবল ইন্টারনেট এর্‌ও এডভান্টেজ কিছু সুবিধা রয়েছে। যেখানেই ক্যাবল টেলিভিশন রয়েছে সেখানেই ক্যাবল ইন্টারনেট এক্সেস দেওয়া সম্ভব। তারমানে, অনেক নন-রুরাল এলাকাতেও এর সংযোগ রয়েছে।অপরপক্ষে, ফাইবার প্রায়ই নির্দিষ্ট স্থানেই সীমাবদ্ধ হয়ে থাকে।বিশেষ করে শহর গুলোতে।কারণ শুধু নির্দিষ্ট এলাকা গুলোতেই এর এক্সেস প্রদানের সুযোগ রয়েছে।

শেষ কথাঃ 

তুলনামূলক বিশ্লেষণে ফাইবার ইন্টারনেট স্পিড এবং ব্যাবহারে উন্নত এবং পছন্দনীয়। কিন্তু,প্রাপ্যতা এবং ছোট-খাট কাজের জন্য ক্যাবল ইন্টারনেট মন্দ না। যদিও টেকনোলজিক্যাল দিক দিয়ে এটা কম গ্রহনযোগ্য কিন্তু এটি আপনাদের কাছে সর্বাধিক ইন্টারনেট সেবা পৌছে দিয়ে থাকে।
ফাইবার যদিও এখনো সর্বত্র পৌছায়নি তবে এটির যেভাবে জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে,তাতে ভবিৎষ্যতে এটি অন্যতম ভাল অবস্থানের ইঙ্গিত দেয়।
এখন ইন্টারনেট সেবা হিসেবে আপনি কোনটা বেছে নিবেন সেটা একান্তই আপনার পছন্দের ব্যাপার।

সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।পরবর্তি পোষ্ট পর্যন্ত ভাল থাকুন।
ধন্যবাদ।

আর্‌ও পড়ে আসতে পারেনঃ 

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.