অ্যান্ড্রোয়েড ওরিও ৮

অ্যান্ড্রোয়েড ওরিও ৮

অ্যান্ড্রোয়েড এর নতুন সংস্করণ ওরিও ৮ আসছে বাজারে। জেনে নিন, লেটেস্ট ফিচার গুলো। 

গুগল নিয়ে এলো ভিন্ন স্বাদে মজাদার ওরিও! কি ভাবছেন? না, ভাই! আমি ওরিও কুকিজের কথা বলিনি। এই ওরিও আপনি খেতে পারবেন না, শুধু ব্যবহার করতে পারবেন! অবশেষে গুগল অ্যান্ড্রোয়েড নতুন অপারেটিং সিস্টেম বাজারে আনতে চলেছে ‘অ্যান্ড্রোয়েড ওরিও ৮।‘ অনেক দিন ধরেই কানাঘুষা চলছিল গুগলের Android O অপারেটিং সিস্টেমের ব্যাপারে। কিন্তু, এই ‘O’ বর্ণ দিয়ে আসলে কি নাম রাখা হবে তা নিয়ে কৌতূহল ছিল মানুষের মাঝে। গুগলের প্রমোশনাল ভিডিও প্রকাশের পর অনেকের মনে জল্পনা তৈরি হয়েছিল যে অ্যান্ড্রয়েড ৮ সংস্করণটির নাম হতে পারে অ্যান্ড্রয়েড ওরিও কিংবা ওটমিল কুকি জাতীয় কিছু। শেষ পর্যন্ত ‘ও’ দিয়ে একটি নাম ঠিক করেছে গুগল। ‘ও’ দিয়ে নাম রেখেছে ‘ওরিও’।

ওরিও কি আমরা সবাইই জানি। ওরিও হচ্ছে বিশ্ব বিখ্যাত মজাদার কুকি। গুগলের অপারেটিং সিস্টেম গুলোর নাম রাখা হয় সাধারণত খাবার বা মিষ্টির নাম অনুসারে। অতীতে আমরা দেখেছি, কিটক্যাট, ললিপপ, নোগাট, মার্সম্যালো, স্যান্ডউইচ, জেলি বিন, ইত্যাদি খাবারের নামে বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেমের নাম রাখতে। সেই আভিজাত্য বজায় রেখে এবারও গুগল ব্যাতিক্রম না করে বিখ্যাত বিস্কেট ওরিও’র নামে নাম রাখলো।

অ্যান্ড্রয়েড ‘ও’ মোবাইল অপারেটিং সিস্টেমের বিটা বিল্ড সংস্করণ উন্মুক্ত করার প্রায় পাঁচ মাস পর এর নাম ঠিক করলো গুগল। তবে মনে হতে পারে গুগল হঠাত কুকিজের নামেই বা নাম রাখতে গেল কেন? গুগল মনে করে, তাদের এই প্ল্যাটফর্ম যত খানি স্মার্ট, ক্ষিপ্র এবং শক্তিশালী, ততখানিই না-কি তারা মিষ্টি। তাই বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় কুকিজকে এ বারে থিম করা হয়েছে। এবং নাম দেওয়া হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ৮.০ ওরিও।

গত মার্চে এর বিটা সংস্করণ আসে। এটি আসার পর এটিকে এটি পাঁচটি ডেভেলপার প্রিভিউয়ের মধ্য দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। বরাবরের মত  গুগল নতুন সংস্করণ টিকে প্রথমে ডেভেলপারদের ব্যবহার করতে দিয়েছিল, যাতে তাঁরা এই অপারেটিং সিস্টেম এবং ডিজাইনের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ  অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে পারেন। পাঁচটি ডেভেলপার প্রিভিউয়ের মধ্য দিয়ে নিয়ে যাওয়ার পর গত মাসের শুরুর দিকে এর সর্বশেষ প্রিভিউ টি এসেছে। গুগল এর সংস্করণটিতে বেশ কিছু নতুন ফিচার যুক্ত করেছে। নতুন এই সংস্করণে পিকচার-ইন-পিকচার মোড, উন্নত ব্যাটারি অপটিমাইজেশনসহ বিভিন্ন ফিচার উন্নত করা হয়েছে। গুগলের পরবর্তী পিক্সেল স্মার্টফোনে অ্যান্ড্রয়েড ওরিও সংস্করণ থাকবে। এর উন্নত ফিচার গুলি নিশ্চয় ব্যবহারকারিদের আকৃষ্ট করতে পারবে। চলুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক, কী কী ফিচার আছে এই ভার্সনটিতেঃ

পিকচার ইন পিকচারঃ

পিকচার ইন পিকচার ফিচার, এর নামে হল- আপনি একই সময়ে একই সাথে দু’টো এপস এ কাজ করতে পারবেন। বুঝেন নি?মনে করুন, আপনি আপনার বন্ধু বা কারও সাথে ইমোতে ভিডিও চ্যাট করছে। ঠিক একই সময়ে আপনি ফেসবুক বা হোয়াটস আপস বা অন্য কোন এপসেও কাজ করতে পারবেন। এই ফিচার টা সত্যিই বিশেষ কাজে দিবে, যদি আপনার একাধিক গার্ল ফ্রেন্ড থেকে থাকে! 😛

নোটিফিকেশনঃ 

কোন এপসের নোটিফিকেশন আসলে এটি ডট সাইন দেখাবে। সেটাতে ক্লিক করলে আপনাকে সরাসরি সেটা এপস এ নিয়ে যাবে। এছাড়া আপনি এই নোটিফিকেশন ফিচারের মাধ্যমে সহজেই আপনার বিভিন্ন এপসের নোটিফিকেশন গুলোকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। মনে করুন, আপনাকে ফেসবুকে কে ট্যাগ করলো, কে কোন গ্রুপে এড করলো এই নোটিফিকেশন গুলো বন্ধ রেখে, অন্যান্য নোটীফিকেশন গুলোকে অন রাখবেন। তবে সহজেই আপনি এটা করতে পারবেন। এটা যথেষ্ট প্রয়োজনীয় একটি ফিচার, যা ব্যবহারকারীদের আকৃষ্ট করতে পারে। এই ফিচারটির ব্যাখ্যা করে গুগল লিখেছেন: “ব্যবহারকারীরা একসঙ্গে সমস্ত অ্যাপস’র নোটিফিকেশন পরিচালনার পরিবর্তে ব্যবহারকারীর প্রতিটি চ্যানেলে আচরণ পরিবর্তন বা নিয়ন্ত্রন করতে পারে।”

ব্যাকগ্রাউন্ড লিমিটঃ

এই ফিচারটি ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতে থাকা এপ্লিকেশনগুলোর উপর কাজ করবে-বিশেষত ব্যাকগ্রাউন্ড সার্ভিসের নিয়মানুসারে এবং লোকেশন সার্ভিস ব্যবহারের ক্ষেত্রে গুরুত্ব বহন করবে। আপনি যে অ্যাপ্লিকেশানগুলিকে সর্বদা কম ব্যবহার করেন তাতে পটভূমির কার্যকলাপ হ্রাস করতে সহায়তা করবে এই ফিচার। এই পরিবর্তনটি এমন কিছু অ্যাপ্লিকেশন  তৈরি করা সহজ করে দেবে যা  ব্যবহারকারীর ডিভাইস এবং ব্যাটারিতে কম প্রভাব ফেলে।

অটোফিলঃ

এটি দারুন একটি ফিচার। অটোফিল সুপারসনিক গতিতে আপনার পছন্দের অ্যাপ্লিকেশানগুলিতে আপনার লগইন কী-ওয়ার্ড গুলি মনে করে রেখে আপনার লগইন করা সহজ করে দিবে। আরেকটু খুলে বলি, মূলত আমরা যেভাবে ডিফল্ট কিবোর্ড নির্বাচন করতে পারছি, ঠিক তেমনি বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশনে লগইনের সময় আইডি-পাসওয়ার্ড দেয়ার জন্য পাসওয়ার্ড ম্যানেজার অ্যাপ নির্বাচন করা যাবে। এই পাসওয়ার্ড ম্যানেজার অ্যাপ টি তখন আপনার সেই অ্যাপের জন্য ইউজারনেম-পাসওয়ার্ড এন্টার করবে। এভাবে অটোফিল কাজ করবে। এটি আপনার পছন্দের পাসওয়ার্ড ম্যানেজার অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে অ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের সাথে কাজ করার অনুমতি দেবে, যাতে আপনি তাদের অ্যাক্সেস করতে পারেন।

অ্যাডাপটিভ আইকনঃ

আরেকটি প্রত্যাশিত বৈশিষ্ট্য অ্যাডাপটিভ আইকন যোগ করা। এর মানে হল ডেভেলপাররা বিভিন্ন আকারের অ্যাপ্লিকেশন আইকন ব্যবহার করতে সক্ষম হবে। অ্যাপ আইকন ব্যাজ নোটিফিকেশনগুলিও সমর্থন করবে, যেমনটি পূর্বে উল্লিখিত হয়েছে। এটি সকল ফোনেই বিভিন্ন ইন্টারফেসে কাজ করবে। নতুন আইকন অ্যানিমেটেড করা যাবে যা আরো প্রাণবন্ত হবে।

বেটার কীবোর্ড নেভিগেশনঃ

আরেকটি বড় পরিবর্তন হল কীবোর্ড নেভিগেশনের উন্নতি। Google এর মতে, আরও অনেক ব্যবহারকারীরা Google Chrome OS এ প্লে স্টোরের আগমনের জন্য একটি ফিজিক্যাল  কীবোর্ড ব্যবহার করে অ্যাপ্লিকেশানগুলিতে নেভিগেট করছে।

বেটার ব্লুটুথ অডিওঃ

গুগল এছাড়াও সনি এর LDAC কোডেক যুক্ত করেছে, যা জাপানী টেক জায়ান্ট এন্ড্রোয়েড কে দান করেছে। যা বর্তমানে ব্যবহৃত ব্লুটুথ A2DP প্রোটোকল এর চে’য়ে অনেক ভাল কাজ করবে। এছাড়া, অ্যান্ড্রয়েড ও’ উচ্চমানের ব্লুটুথ অডিও কোডেক সমর্থন করবে। কোম্পানীটি আউডিয়ো প্রবর্তন করছে, যা উন্নত নিম্ন-স্বচ্ছতা অডিওতে পরিণত হবে। ফার্মটি বলছে এটি একটি “নতুন নেটিভ এপিআই যা বিশেষভাবে অ্যাপ্লিকেশনগুলির জন্য ডিজাইন করা হয়েছে।

রিলিজ ডেটঃ

পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্সেলে’র পাশাপাশি নেক্সাস 6 পি, নেক্সাস 5 এক্স, নেক্সাস প্লেয়ার এবং পিক্সেল সি এর জন্য প্রথমে অ্যান্ড্রয়েড ওরিও আপডেটটি চালু করা হয়েছে। অন্যান্য ডিভাইস গুলোতে কবে এর আপডেট পাওয়া যাবে তা বিভিন্ন কারণের উপর নির্ভর করছে। যেমন ধরুন, আপনার ফোন প্রস্তুতকারকের হালনাগাদ ট্র্যাক রেকর্ড,  আপনি কি ফোন ব্যবহার করছেন, আপনার ফোনটি আনলক বা ক্যারিয়ার-ব্র্যান্ডেড,  আপনার লোকেশন ইত্যাদির উপর নির্ভর করে। তবে, আশা করা যায়, এই মাসের শেষের দিকে আমরা অ্যান্ড্রোয়েড ও বা ওরিও’র আপডেট পেয়ে যাব।

পরিশেষে, নতুন আপডেট কখন পাবো, আর ফিচার গুলো কেমন হবে তা দেখা এখন শুধু সময়ের ব্যাপার। তবে, সঠিক সময়ে আপডেট দিতে পারলে আশা করা যায়, ব্যবহারকারীদের এই সংস্করণ টি নজর কাড়তে পারবে। জয়তু অ্যান্ড্রোয়েড মামা।

আরও পড়ুনঃ

1 Comment

  • ভালো লাগলো! ব্যাট ফিচার গুলোর ফটো শেয়ার করলে বিষয় গুলো আরো পরিষ্কার হতো।
    অ্যান্ড প্যারাগ্রাফের মধ্যে মানে সম্পূর্ণ প্যারাগ্রাফই আঙ্কর করা আছে কেন? এইটা এসইও’তে বহুত খারাপ ইফেক্ট ফেলবে, সত্যি বলতে রিডার হিসেবে আমার ব্যাপারটা বিরক্তিকর মনে হয়েছে।

    ~ধন্যবাদ!

Leave a Comment

%d bloggers like this: